সাবমেরিন কি? সাবমেরিন এত কিছু করতে পারে!

0
97
সাবমেরিন কি?সাবমেরিন
সাবমেরিন কি?সাবমেরিন

আপনারা অনেকেই হয়তো সাবমেরিনের নাম শুনেছেন। কিন্তু সাবমেরিন কি? বিজ্ঞানের আবিষ্কার এর আরেক নাম সাবমেরিন। কারণ, বিশেষ কোন নৌযান তৈরি কিন্তু মোটেও সহজ কোন বিষয় নয়।

অনেক দীর্ঘ সময় সাধনার ফল হিসাবে আজকে আমরা আধুনিক এই সাবমেরিন পেয়েছি। বিজ্ঞানের আবিষ্কার এর নির্দিষ্ট কোন সীমা নেই। পৃথিবীতে কত কিছু আবিষ্কার হচ্ছে। তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে সাবমেরিন।

সাবমেরিন কি?

সাবমেরিন (submarine) এমন একটি বিশেষ নৌযান যার পানির নিচে স্বাধীনভাবে যাতায়াত করার ক্ষমতা রয়েছে। সাবমেরিন কি ! সাবমেরিন একটি জলজ নৌযান যা পানির নিচে যাতায়াত করে। এটি নতুন করে বলার কিছু নয় কিন্তু যারা সাবমেরিন সম্পর্কে আগে জানতো না আজই প্রথম এই পোস্টের মাধ্যমে জানতে পারল তাদের জন্য এর পোস্টটি হতে যাচ্ছে দারুন মজাদার একটি বিষয়।

কারণ, বিজ্ঞানকে একটি মজার বিষয় বলা হয়। অনেকেই ভেবে থাকেন যে, বিজ্ঞান অনেক কঠিন বিষয় কিন্তু বাস্তবে মোটেও কিন্তু তা নয়। আপনি চাইলে বিজ্ঞান বিষয়ে এই পোষ্টটি পড়ে নিতে পারেন। যাইহোক আজকের টপিকে ফিরে আসা যাক। নিচের ছবিটিই হল সাবমেরিন।

সাবমেরিন কি?সাবমেরিন
সাবমেরিন

আপনি কি জানেন সাবমেরিনের বাংলা নাম কি ? সাবমেরিন তো ইংরেজি শব্দ। সাবমেরিনের বাংলা নাম ডুবোজাহাজ । বিজ্ঞানের আগ্রগতির কোন তুলনা হতে পারে না। পানির নিচে যাতায়াতের জন্য বিশেষ নৌযান তৈরিতেও বিজ্ঞান অনেক সফল। সাবমেরিন সম্পর্কে জানতে মানুষের মধ্যে অনেক আগ্রহ রয়েছে।

বাস্তবে বিজ্ঞানের আবিষ্কারই এমনই, বিজ্ঞান এমন কিছু আবিষ্কার করে যায় যা সত্যি অকল্পনীয় তাই মানুষের মধ্যে জানার জন্য ক্ষুধা অনেক বেড়ে যায়! অনেকেই আছি যারা সাবমেরিন সম্পর্কে অনেক কিছু অনুসন্ধানের চেষ্টা করি!

সাবমেরিন ছোট নয়। আপনি হয়ত জানেন না যে, সাবমেরিন কত বড় হয় তবে সত্যি বলতে সাবমেরিনের নির্দিষ্ট কোন সাইজ নেই যে এই সাইজেই আপনাকে তৈরি করতে হবে। তবে সাবমেরিন কিন্তু খুব ছোট নয়।

সাবমেরিন কি ? কিভাবে কাজ করে? সহজ ভাষায় সাবমেরিনের সংজ্ঞা হচ্ছে, সাবমেরিন বা ডুবোজাহাজ হচ্ছে এমন একটি বিশাল আকৃতির মেশিন যা সকল পরিস্থিতিতে কাজ চালিয়ে যেতে পারে।

পৃথিবীর ভাল সময় অথবা খারাপ সময় যেকোন সময়েই কাজ করার জন্য প্রস্তুত থাকে সাবমেরিন। যেকোন দেশের পানিপথ রক্ষা করতে সাবমেরিন খুবই প্রয়োজনীয়। কারণ, আপনি কখনই চাইবেন না যে, পানিপথ নিরাপত্তা ছাড়া থাকুক।

তাই যে দেশের কাছে যত বেশি পরিমাণে সাবমেরিন থাকবে সেই দেশ তত বেশি এগিয়ে থাকবে এটাই স্বাভাবিক।

আপনি ইতিমধ্যেই শুনেছেন যে, সাবমেরিন পানির নিচে অবস্থান করে  সুতরাং, সেখানে কোন আলো নাই, কোন বাতাস নাই, পানির নিচে শুধুই অন্ধকার। পানির চারপাশে পানির স্রোতের যেকোন চাপকে বাধা প্রদান করে নিজ গতিতে এগিয়ে যেতে সক্ষম সাবমেরিন।

সাবমেরিন এমন একটি বিশালাকার মেশিন যেখানে, পানির যতই চাপ থাকুক না কেন নিজ গতিতে যেতে কোন কিছুই বাধা হতে পারেনা । বরং, পানিপথে শত্রু পক্ষের ঘাটিতে পুরোপুরিতে আঘাত হানতে সক্ষম সাবমেরিন। সাবমেরিন পানির উপর ভেসে উঠে আবার পানির অনেক গভীরে চলে যেতে পারে।

সাবমেরিন এর ক্ষমতা
সাবমেরিন এর ক্ষমতা

শত্রুর উপরে আঘাত করার জন্য সাবমেরিন অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। আর এজন্য সব দেশ বিভিন্ন প্রযুক্তি ব্যাবহার করে নতুন নতুন এবং অনেক ক্ষমতা সম্পূর্ণ সাবমেরিন তৈরি করছে। উন্নত দেশ গুলোতে অনেক বেশি করে সাবমেরিন তৈরি করা হয়।

শুধু তাই নয় উন্নত দেশগুলো নিজের দেশকে এগিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি অন্যান্য দেশেও সাবমেরিন বিক্রি করছে এবং অনেক মুনাফা আয় করছে। দেশের সার্বভৌম রক্ষায় বাংলাদেশও অঙ্গীকারবদ্ধ । বাংলাদেশও কিছু সাবমেরিন ক্রয় করেছে এবং নৌপথকে শক্তিশালী করার চেষ্টা করছে।

সাবমেরিন কিভাবে তৈরি হয়? পারমানবিক শক্তি দিয়ে বানানো হয় সাবমেরিন। সাবমেরিন তৈরি করতে অনেক খরচ হয় যা নিচু শ্রেণীর আয়ের দেশগুলোর জন্য অনেক জটিল। সুতরাং, সাবমেরিন যেহেতু পানি পথে অনেক ক্ষমতার অধিকারী তাই সাবমেরিন সবার কাছে অনেক মূল্যবান একটি জিনিস।

সাবমেরিন আবিষ্কারক কে?

আপনি কি জানেন সাবমেরিনের আবিস্কারক কে! সাবমেরিনের আবিস্কারক হচ্ছে কর্নেলিস ড্রেবেল (cornelis drebbel) । কর্নেলিস ড্রেবেল হচ্ছেন একজন জার্মান ইঞ্জিনিয়ার এবং উদ্ভাবক। তিনিই প্রথম সাবমেরিন আবিষ্কার করেন যাকে ডুবোজাহাজ বলা হয়। আপনি কি জানেন, কর্নেলিস ড্রেবেল প্রথম সাবমেরিন কিভাবে তৈরি করেছিলেন ?

কর্নেলিস ড্রেবেল ১৬২০ সালে প্রথম সাবমেরিন আবিষ্কার করেছিলেন। তিনি যেই সাবমেরিন আবিষ্কার করেছিলেন সেটি ছিল কাঠের তৈরি।

আরো পড়ুন-

এই পোস্টের বিষয় ছিল সাবমেরিন কি! সুতরাং, সাবমেরিন কি এই বিষয়ে আপনি অনেক ধারনা পেয়েছেন। এই পোস্টটি যদি ভাল লাগে তাহলে শেয়ার করে অন্যকে জানার সুযোগ করে দিন এবং আপনার যদি কোন কিছু জানার থাকে তাহলে কমেন্ট করুন। আশা করছি আপনার উত্তর পেয়ে যাবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.